ডক্টর কামালের মুজিব আদশ ও জামায়াত-বিএনপির সঙ্গ!

জোটের নামে বিএনপি ও ডক্টর কামাল-গংরা নির্বাচন বানচাল করতে চাইছেন কি-না, সেটি। ২০০৬ সালে তত্ত্বাবধারক সরকার গঠিত হয়েছিল নির্বাচন করার জন্য কিন্তু সে সরকার অঙ্গীকার পালনে শুধু ব্যর্থই হয়নি বরং জাতির কাঁধে একটি অনির্বাচিত সেনা-সরকার চাপিয়ে দিয়েছিল।

দশম নির্বাচন নিয়েও নতুন সংকট দেখা দেয়। এর মধ্যে জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল হয়ে যায়। বিএনপি যাতে ২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচনে না যায় সে জন্য জামায়াতের অভ্যন্তরীণ চাপ ছিল। সেই সঙ্গে দেশে-বিদেশে আওয়ামী লীগ বিরোধী চক্রও চায়নি বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। কেননা সবারই ধারনা ছিল বিএনপিকে বাদ দিয়ে নির্বাচন করতে পারলেও সেই সরকার ক্ষমতার মেয়াদ পুরো করতে পারবেনা। কিন্তু নিন্দুকের মুখে ছাই দিয়ে শেখ হাসিনার সরকার সাফল্যের সঙ্গে সরকারের মেয়াদ পার করেছে এবং তাতেই মাথা খারাপ হয়ে গেছে ১/১১-এর সেই পুরনো কুশীলবদের।

রাজনীতি কৌশলের খেলা। নিত্যনতুন যেমন সমস্যা তৈরি হয়, এর সমাধানও করতে হয় তড়িৎ এবং সুকৌশলে। শত্রুমিত্রও এখানে চিরস্থায়ী বিষয় নয়। আদর্শ বলে একটা ব্যাপার আছে বটে তবে সবক্ষত্রে সেটিও রক্ষিত হয়না। ক্ষমতা, স্বার্থ আর পার্থিব প্রাপ্তিযোগের কাছে আদর্শের মহান বানী খড়কুটোর মতোই ভেসে যায়। মুখে সাতান্ন বার বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণ করেও ডক্টর কামালের মতো সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা এবং দেশবরেণ্য আইনবিদ শেষে কিনা জোটবদ্ধ হলেন জামায়াত-বিএনপির সঙ্গে?! আমরা সামান্য চুনোপুঁটি, বড় বড় মানুষদের কায়কারবার বুঝার সাধ্য আমাদের নেই। তবে আমাদের দোষ একটাই, একবার যে আদর্শ সত্যি বলে জেনেছি সেটি যে চিরকেলে জপমন্ত্র হয়ে গেছে।

এই সেদিনও কামাল, মান্না, সুলতান মনসুর’রা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আর আওয়ামী রাজনীতির একনিষ্ঠ ধারক-বাহক ছিলেন। সেই তারাই সিলেটে ঐক্যফ্রন্টের গয়লা সমাবেশে মেজর জিয়ার বিএনপি, মওদুদীর জামায়াতের গুণকীর্তন গাইলেন।

এনারা আওয়ামী লীগ করবেন না, তাতে আমার বিন্দুমাত্র দুঃখ নেই। তাই বলে দেশ ও স্বাধীনতাবিরোধী চক্রের মোসাহেবি করতে হবে তাও আবার গায়ে মুজিব কোট চাপিয়ে? সুলতান মনসুর’রা কি দেশে আদৌ নির্বাচন চায় নাকি বিএনপিকে কৌশলে নির্বাচন থেকে দূরে রেখে দেশে সাংবিধানিক সংকট তৈরির নকশা আঁটছে? কিছুই বলা যায়না কারন মিত্র একবার শত্রু হয়ে গেলে সম্ভব-অসম্ভব সবই করতে পারে। এই সুযোগ নিয়ে যদি দেশি-বিদেশী অপশক্তি প্রিয় দেশটি নিয়ে নতুন কোনো খেলায় মাতে তবে অনেক কষ্টে সমৃদ্ধির পথে হাটা দেশটির অর্থনীতি না আবার মুখথুবড়ে পড়ে! সবার শুভবুদ্ধির উদয় হোক।।

লেখকঃ রাকিব মাহমুদ রাব্বি
সভাপতি বিপিআরএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares