পরিবহন শ্রমিকের হাতে আটক অ্যাম্বুলেন্স, নবজাতকের মৃত্যু

রফিকুল ইসলাম জসিম,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : বড়লেখায় পরিবহণ শ্রমিকরা বরযাত্রীবাহী একটি গাড়িতে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে। এসময় দুইপক্ষের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ৮ ব্যক্তি আহত হয়। অপরদিকে শিশু রোগী বাহী একটি অ্যাম্বুলেন্স পরিবহণ শ্রমিকরা দফায় দফায় আটকে দেয়ায় মুমূর্ষু ঐ শিশু রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার সীমান্তবর্তী শাহবাজপুরের এলাম অর্জুনপুর থেকে বরযাত্রী বাহী গাড়ি বহর কানলী ব্রিজ এলাকায় যাওয়ার পরই পরিবহন শ্রমিকরা প্রথমে বাঁধা দেয় ও পরে হামলা চালায়। বেলা দুইটার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে। এ নিয়ে বরযাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকদের মধ্যে বাকবিত-া দেখা দেয়। এক পর্যায়ে এক বরযাত্রী ভিডিও করতে গেলে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে উভয় পক্ষের ৮ আহত হন।

অপরদিকে অ্যাম্বুলেন্সে আটকা পড়ে এক শিশু মারা গেছে। রোববার বেলা আড়াইটার দিকে উপজেলার চান্দগ্রামবাজার এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটেছে। নিহত কন্যাশিশুটি বড়লেখার অজমির গ্রামের কুটন মিয়ার মেয়ে। ৭দিন আগে তার জন্ম হলেও এখনও নাম রাখা হয়নি। নিহত শিশুটির চাচা আকবর আলী জানান, ভাতিজি অসুস্থ হয়ে পড়লে রোববার সকালে তাকে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যাই। চিকিৎসকরা তাকে দ্রুত সিলেট নেয়ার পরামর্শ দেন। অ্যাম্বুলেন্সে করে সিলেট যাওয়ার পথে বড়লেখা উপজেলার দরগাবাজারে পরিবহন শ্রমিকরা অ্যাম্বুলেন্সটি আটকে দেয়। কিছুক্ষণ পর ছেড়ে দেয়। একইভাবে দাসেরবাজার এলাকায় তাদেরকে আবারো আটকানো হয়। সেখান থেকে কোনমতে ছাড়া পেয়ে চান্দগ্রাম বাজারে আবারও শ্রমিকরা গাড়িটি আটকায়। এসময় অ্যাম্বুলেন্স চালককে গাড়ি থেকে নামিয়ে অমানবিকভাবে মারধর করে। হাসপাতালে পৌঁছতে না পারায় শিশুটি এখানেই মারা যায়। পরে বিয়ানীবাজার হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আমরা থানায় অভিযোগ করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares