মেসি জাদুতে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা

চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর টিকিট আগেই নিশ্চিত হয়েছিল বার্সেলোনার। তারপরও পিএসভি আইন্দহোভের মাঠে নিজেদের খেলায় সেই ছাপ একটুও রাখেনি কাতালানরা। উল্টো লিওনেল মেসির জাদুতে দারুণ জয়ে ‘বি’- গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ন্যু-ক্যাম্পের দলটি।

বার্সেলোনাকে বুধবার এগিয়ে নেন লিওনেল মেসি। এরপর ব্যবধান দ্বিগুন করতেও তিনি রাখেন অবদান। তার ফ্রি কিকে পা ছুঁইয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন জেরার্ড পিকে। অবশ্য ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছিল পিএসভি আইন্দহোভেন। তবে শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের দারুণ জয়ে গ্রুপ সেরা হয়েই ইউরোপ সেরার এ টুর্নামেন্টের নকআউটে পা রাখল আরনাস্তে ভালভার্দের শিষ্যরা। এরআগে গত সেপ্টেম্বরে ঘরের মাঠে একই প্রতিপক্ষকে প্রথম লেগের ম্যাচে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল কাতালান ক্লাবটি। যে ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছিলেন মেসি।

প্রতিপক্ষের মাঠে প্রথমার্ধে বল নিয়ন্ত্রণ বেশি রাখলেও আক্রমণে বার্সেলোনা ছিল বেশ পেছনে। যে কারণে সে সময় জালের দেখা পায়নি দলটি। তবে বিরতির মেসি ও পিকের নৈপুণ্যে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে দলটি। তাতে চ্যাম্পিয়নস লিগের ‘বি’- গ্রুপের চ্যাম্পিয়নের তকমা মেখে নকআউটে জায়গা করে নিয়েছে কাতালানরা।

বুধবার ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই বার্সেলোনা পেছনে পড়তে পারতো। কিন্তু গাস্তন পেরেইরোর প্রচেষ্টা আটকে কাতালানদের রক্ষা করেন গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। ষোড়শ মিনিটে ইভান রাকিতিচের ভুলে বল পেয়ে যাওয়া উরুগুয়ের এই মিডফিল্ডারের শট পোস্টে লেগে ফিরলে আরেকবার বেঁচে যায় বার্সেলোনা। তবে ৩৫তম মিনিটে দারুন আক্রমণে প্রায় জালের দেখা পেয়েই গিয়েছিল আরনাস্তে ভালভার্দের শিষ্যরা। কিন্তু মেসির বাড়নো বলে কৌতিনহো ঠিকমত পোষ্টে শট নিতে পারেননি। দুই মিনিট পর আর্তুরো ভিদালের ব্যর্থতায় কাতালুনিয়ার দলটির হতাশা আরও বাড়ে। এদিকে ৪৫তম মিনিটে ভাগ্যের ফেরে আবারও গোলবঞ্চিত হয় আইন্দহোভেন। এবার সতীর্থের ফ্রি কিকে ডি ইয়ংয়ের হেড ক্রস বারে লেগে ফেরে।

বিরতির পর গোলের নেশায় মেতে ওঠে বার্সেলোনা। অবশ্য এর সুফল পেতে খুব বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি দলটিকে। ৬১তম মিনিটে মেসির নৈপুণ্যে এগিয়ে যায় ভালভার্দের দল। উসমান ডেম্বেলের সঙ্গে একবার বল দেওয়া-নেওয়া করে বাঁ পায়ের দারুণ শটে কাছের পোস্ট দিয়ে জাল খুঁজে নেন কিং লিও। এর ৯ মিনিট পর পিকের গোলে ব্যবধান দ্বিগুন করে কাতালানরা। মেসির ফ্রি কিকে স্পেনের এই ডিফেন্ডার পা ছোঁয়ালে বল গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে জালে জড়ায়। তারপরও জয় নিশ্চিত ছিল না বার্সেলোনার। কেননা ঘরের মাঠে বুধবার ম্যাচের ৮২তম মিনিটে সতীর্থের বাড়ানো ক্রসে নেদারল্যান্ডসের ফরোয়ার্ড ডি ইয়ং হেডে টের স্টেগেনকে পরাস্ত করলে ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দেয় আইন্দহোভেন। শেষ পর্যন্ত অবশ্য তেমনটা হতে দেননি মেসি-পিকেরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares