ঐক্যফ্রন্ট শপথ না নি‌লে আরেকটি ভুল কর‌বে : কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপি ও ঐক্যফ্র‌ন্টের সমা‌লোচনা করে বলেছেন, তারা এম‌পি হি‌সে‌বে শপথ না নি‌লে আরেকটি ভুল কর‌বে। আবারো ভুলের চোরাবালিতে আটকাবে বিএনপি।

শুক্রবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবা‌বে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ উন্নয়নের পক্ষে স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়েছে। আমাদের নেত্রীর ব্যক্তিগত সততা ও ক্যারিশমার পক্ষে এ দে‌শের জনগণ।’

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিতদের শপথ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘পার্টির পক্ষ থেকে, সরকারের পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ করেছি, তাদের অনুরোধ করছি, জনগণের রায়কে অসম্মান করা উচিত নয়।’

কাদের বলেন, ‘গতবারও তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে যে ভুল করেছে সে ভুলের চোরাবালিতে তারা এখনো আটকে আছে। এবার যদি একই ভুল করে, কিছু আসনে জয় পেয়েও যদি তারা সংসদে যোগ না দেয়, সংসদ অধিবেশনে যদি না আসে, যে জনগণ তাদের ভোট দিয়েছে তাদের পক্ষে কথা বলতে যদি তারা সংসদে যোগ দিতে ব্যর্থ হয়, তাহলে এই ব্যর্থতা আর ভুলের চোরাবালিতে তাদেরকে আবারো আটকে থাকতে হবে।’

শুক্রবার সকালে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিএনপির তিন নেতা। এই বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘কেন? বৈঠক করলে কী অসুবিধা? (বিএনপি) বৈঠক তো করতেই পারে। মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে (তারা) বৈঠক করলে কি আকাশ ভেঙে পড়বে আমাদের উপর?’

নতুন মন্ত্রিসভায় বড় ধরনের চমক থাকতে পারে বলে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমার কেন যেন মনে হয় বিশাল একটা চমক আসবে।’

অপর প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে আওয়ামী লীগের পথ চলা। তবে বিশাল জয়ের সঙ্গে বিশাল চমকও থাকতে পারে।’

কাদের বলেন, ‘এই মন্ত্রিসভায়…আমি ঠিক বলতে পারছি না। তবে আমার মনে হয় বিপুল বিজয় তো বিপুল প্রত্যাশা। বিশাল বিজয়ের সঙ্গে বিশাল প্রত্যাশা। জনগণেরও এখানে একটা প্রত্যাশা রয়েছে। সেই প্রত্যাশার প্রতিধ্বনিতো করতে পারে একজনই (শেখ হাসিনা)।’

তিনি বলেন, ‘কেবিনেটের বিষয়টা সম্পূর্ণ তার (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) বিষয়। এটা প্রধানমন্ত্রীর এরিয়া, এখানে অন্য কারো প্রবেশের সুযোগ নেই।’

ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ছাত্রলীগ সুনামের ধারায় থাকুক, সেটিই চাই। ছাত্রলীগের যে ঐতিহ্য ইতিহাস, সংগ্রাম ও গৌরবের, সেই ইতিহাস ঐতিহ্যকে চেতনায় ধারণ করে ছাত্রলীগ আজকে সময়ের চাহিদা পূরণে দায়িত্ব পালন করবে।’

ছাত্রলীগ নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের তরুণ সমাজকে সংগঠিত করবে উন্নয়নের চাকাকে সচল রাখার জন্য। সেখানে অভিজ্ঞতার সঙ্গে তারুণ্যের শক্তিতে কাজে লাগাবে। ছাত্রলীগ তারুণ্যের প্রতীক, অ্যানার্জির প্রতীক। তরুণ সমাজকে সংগঠিত করবে, আমাদের চলমান উন্নয়নের চাকাকে সচল রাখবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares