কেরানীগঞ্জে আ.লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সিদ্দিককে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে। আজ শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কেরানীগঞ্জের ঘাটারচর সড়কের মধু সটি আবাসন প্রকল্পের অফিসের ভেতর এ ঘটনা ঘটে। মুমূর্ষু অবস্থায় আ,লীগ নেতাকে উদ্ধার করে রাজধানীর ল্যাবএইড হাপসাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, শুক্রবার বিকেলে আবু সিদ্দিকের ছোট ছেলে শিফাত সিদ্দিক ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে ঘাটারচর সড়কে ঘুরতে যায়। সেখনে সিফতের সথে মধু সিটি আবাসন প্রকল্পের লোকজনের সঙ্গে বিবাদ হয়। এক পর্যায়ে শিফাতের গাড়ি ভাঙচুর করে মধু সিটির লোকজন। এ বিষয়ে সিফতের পিতা আ,লীগ নেতা আবু সিদ্দিদক প্রতিবাদ জানাতে লোকজন নিয়ে শনিবার বিকেলে মধু সিটির সামনে আসলে দুই পক্ষের মধ্যে তুমুল বাক বিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে মধু সিটির লোকজন ধাওয়া করে আবু সিদ্দিকের লোকজনকে তাড়িয়ে দেয়। এ সময় তারা আবু সিদ্দিককে ধরে মধু সিটির নতুন অফিসে নিয়ে যায়। সেখানে ধারালো অস্ত্র নিয়ে কুপিয়ে তাকে রক্তাক্ত জখম করা হয়। স্থানীয় লোকজন খবর পেয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় আবু সিদ্দিককে উদ্ধার করে প্রথমে আটিবাজার সেন্ট্রাল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে রাজধানীর ল্যাডএইড হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

আটিবাজার সেন্ট্রাল হাসপাতালের পরিচালক ডা. হাবিবুর রহমান বলেন, প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে আবু সিদ্দিককে ঢাকার একটি বড় হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তার মাথায়, মুখমণ্ডলে, ঘাড়ে একাধিক ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

মধু সিটি আবাসন প্রকল্পের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সলিমুল্লাহ সলিম জানান, আমাদের অফিসে কোরআনখানি ও মিলাদ মাহফিলের অনুষ্ঠান চলছিল। সেখানে আমার ছোট দুই ছেলে উপস্থিত ছিলেন। এ সময় আবু সিদ্দিক দাবিকৃত চাঁদা না দেওয়ায় লোকজন নিয়ে আমাদের অফিসে হামলা করতে আসে। তখন আমাদের লোকজন প্রতিরোধ করলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় তাদের লোকজনের হাতেই আবু সিদ্দিক রক্তাক্ত জখম হয়েছে বলে আমি শুনেছি। ঘটনার সময় আমি সেখানে উপস্থিত ছিলাম না বলেও দাবি করেন।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আবু সিদ্দিককে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ঘটনায় আহত আওয়ামী লীগ নেতা আহত থাকায় তার কোনো বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares