শবরিমালা মন্দির নিয়ে কেরালায় আতঙ্ক, গ্রেফতার ১৩৬৯

ভারতের কেরালা রাজ্যে শবরিমালা মন্দির নিয়ে চলমান উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে। এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় দায়ের করা ৮০১টি মামলায় ১৩৬৯ জনকে গ্রেফতার করেছে কেরালা পুলিশ। শুক্রবার সকালে নতুন করে দুই নারীর মন্দিরে প্রবেশ করা নিয়ে সহিংসতা ভয়াবহ আকার ধারণ করে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। গতরাতে দু’পক্ষের সংঘর্ষের জেরে একজন নিহত হওয়ার পর পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়ে পড়ে। সহিংসতায় মৃত্যুর ঘটনায় পুলিশ দুইজন সিপিআই (এম) এর সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। এদিকে শুক্রবার মন্দিরে তৃতীয় একজন নারী প্রবেশ করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় ৮০১টি মামলা দায়ের হয়েছে। যার অধিকাংশর বাদি পক্ষ হলো পুলিশ। শবরীমালা মন্দিরে এত দিন ১০ থেকে ৫০ বছর বয়সী ঋতুমতী কোনো নারী প্রবেশ করতে পারতেন না। তবে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সম্প্রতি সেই নিয়ম খারিজ করে দিয়েছেন।

সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের পর মন্দিরে যেকোনো বয়সের নারীর প্রবেশে বাঁধা না থাকায় গত বুধবার ভোরে মধ্যবয়সী ঋতুমতী দুই নারী প্রশাসনের সহায়তায় শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করে প্রার্থনা সারেন। তার পর থেকেই রাজ্যজুড়ে শুরু হয় বিক্ষোভ ও সহিংসতা। শুক্রবারও এই বিক্ষোভ চলছে।

এদিকে ভারতের কট্টর হিন্দুত্ববাদী সংগঠণগুলো মন্দিরে নারীদের প্রবেশে বাধা দিচ্ছেন। তারা এও হুমকি দিয়েছে যদি কোনো নারী মন্দিরে প্রবেশ করেন তাহলে রাজ্য অচল করে দেয়া হবে। বিভিন্ন দোকান, বাজার ও অন্যান্য স্থাপনা বন্ধের মাধ্যমে রাজ্য অচল করে হলেও তারা মন্দিরে নারীদের প্রবেশের বিপক্ষে।

এদিকে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কেরালায় রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব প্রকাশ্য রূপ নিয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে বামপন্থীদের সঙ্গে বিজেপি সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘসহ (আরএসএস) বিভিন্ন ডানপন্থী সংগঠন এই সংঘাতে ইন্ধন জোগাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। বিক্ষোভে যোগ দিয়েছে ধর্মনিরপেক্ষতা ও বৈষম্যহীনতার পক্ষে গলা ফাটানো রাজ্য কংগ্রেসও।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গণগ্রেফতারের পদ অবলম্বন করেছে। আর তাই গোটা রাজ্য জুড়ে গ্রেফতার আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে এরকম চলতে থাকলে আরও মানুষ প্রাণ হারাবেন।

১৯৯১ সালে দেওয়া কেরালা হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী ১০ থেকে ৫০ বছরের ঋতুমতী নারী ওই মন্দিরে প্রবেশ করতে পারেন না। কিন্তু ভারতের সর্বোচ্চ আদালত এমন রুল কারিজ করে দিয়েছেন। আর তাই মন্দিরে প্রবেশের জন্য উন্মুখ হয়ে আছেন হাজার হাজার নারী। তারা মন্দিরে প্রবেশে দাবিতে বিক্ষোভ করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares