ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের গাড়ি ওভারটেক করায় কাঠমিস্ত্রিকে মারধর!

মোঃ ইলিয়াস আলী ঠাকুরগাঁও: দাঁড়িয়ে থাকা পুলিশ সদস্যদের মোটরসাইকেল ওভারটেক করায় বেধড়ক মারধরের শিকার হয়েছেন এক কাঠমিস্ত্রি। পুলিশ সদস্যরা আসরাফুল ইসলাম (২৮) নামে ওই কাঠমিস্ত্রির মোটরসাইকেল আটক করে তাকে পিটিয়ে আহত করে।

বুধবার (৬ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীর ডাঙ্গীবাজার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। বালিয়াডাঙ্গী থানার এসআই খাইরুজ্জামানসহ চারজন পুলিশ সদস্য এ ঘটনা ঘটান। বর্তমানে আহত আসরাফুল বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

শুক্রবার (৮ মার্চ) ঘটনার বিস্তারিত জানিয়ে মারধরের শিকার আসরাফুল সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার দিন রাতে ডাঙ্গীবাজার মোড়ে পোশাক ছাড়া কয়েকজন পুলিশ মোটরসাইকেল নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিল। সে সময় সেখানে তাদের মোটরসাইকেল ওভারটেক করে যাওয়ায় আমাকে ধাওয়া করে। আমার মোটরসাইকেল থামিয়ে গালিগালাজ শুরু করেন। বলেন, আমাকে চেন? থানায় চল। এরপর চার-পাঁচজন পুলিশ লাথি ও কিল-ঘুষি দিয়ে পেটাতে শুরু করেন।

এ দিকে ঘটনার সময় স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য ওমর আলীসহ স্থানীয় কয়েকজন দোকানদার এ ঘটনা দেখে এগিয়ে আসলে তাদেরও পুলিশ আঘাত করে।

প্রত্যক্ষদর্শী হায়দার আলী জানান, মারপিটের সময় বাধা দিতে গিয়ে পুলিশের লাঠির আঘাতে কুসুম উদ্দীন, জাবেদ, আইজুল ও হামিদুল নামের চার ব্যবসায়ী আহত হয়।

আহত অন্য ব্যবসায়ীরা জানান, পুলিশ ঘটনাটি সামাল দেওয়ার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে। এমনভাবে কোনো মানুষকে মারপিট করা যায় না। অথচ আসরাফুলের কোনো অপরাধই নেই।

বালিয়াডাঙ্গী হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মনিরুজ্জামান লিমন বলেন, আসরাফুলের পায়ে, হাতে পিঠেসহ সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আসরাফুলকে চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. দবিরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আসরাফুল ও তার বাবা আমাকে জানিয়েছে। আমি থানার ওসিকে বিষয়টি তদন্ত করে দেখার নির্দেশ দিয়েছি।

অভিযুক্ত বালিয়াডাঙ্গী থানার এসআই খাইরুজ্জামানের মুঠোফোনে অসংখ্যবার কল দিয়ে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি মোসাব্বেরুল হক বলেন, ভুল বুঝাবুঝির কারণে একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। আমি কাঠমিস্ত্রি আসরাফুলকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলাম। রবিবার পর্যন্ত আমি ছুটিতে আছি। কর্মস্থলে ফিরলে কাঠমিস্ত্রি ও তার পরিবারের লোকজনকে ডেকে নিয়ে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares