২১১ রানেই অলআউট বাংলাদেশ,দুই ওপেনারকে হারিয়ে ধুঁকছে নিউজিল্যান্ড

ওয়েলিংটন টেস্টের প্রথম দুদিন বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ার পর আজই প্রথম উঁকি দিল সূর্য। মাঠে গড়াল বল। তবে শুরুটা ভাল করেও স্বল্পরানেই অল আউট বাংলাদেশ দল।

বাংলাদেশকে অলআউট করে ব্যাট হাতে শুরুটা ভালো হয়নি নিউজিল্যান্ডেরও। স্কোর বোর্ডে পাঁচ রান জমা হতেই টম ল্যাথামকে ফিরিয়ে দেন আবু জায়েদ রাহী। লিটন দাসের হাতে ক্যাচ দেয়ার আগে ৪ রানের বেশি করতে পারেননি কিউই ওপেনার। ৩ রান বাদেই আরেক ওপেনার রাভেলকেও দলীয় ৮ রানে ফিরিয়ে দেন রাহী। সৌম্যের হাতে ক্যাচ দিয়ে ৩ রান করে ফিরেন তিনি।

সর্বশেষ স্কোরঃ
নিউজিল্যান্ড ১২/২
আবু জায়েদ রাহী ৯/২।

এর আগে সকালের সূর্যের তেজদ্বীপ্ত আলোর সঙ্গে বাংলাদেশের দুই ওপেনারের ব্যাটও জ্বলে উঠে। প্রথম সেশনেই যা লড়াই করার করেছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় সেশনে অসহায় আত্মসম্পর্ণ করে ২১১ রানে অলআউট বাংলাদেশ।

প্রথম দেড় ঘন্টা স্বাগতিক বোলারদের দারুণভাবে সামলে শুরুর ‘ভয়’ দূর করেন তামিম ইকবাল ও সাদমান ইসলাম। পানি পানের বিরতির আগে ২০ ওভারে বাংলাদেশের রান ৭৪। উইকেটের চারিপাশে রান তুলে দুই ব্যাটসম্যান থিতু হয়ে যান সহজেই। তামিম ছিলেন খানিকটা আগ্রাসী। অন্যদিকে বুঝেশুনে ধীরস্থির হয়ে এগোতে থাকেন সাদমান।

২১তম ওভারে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ভাঙেন দুই ব্যাটসম্যানের প্রতিরোধ। অফস্ট্যাম্পের কাছ ঘেঁষে বেরিয়ে যাওয়া বল সাদমানের ব্যাটে ছোঁয়া পেয়ে যায় স্লিপে টেলরের হাতে। ২৭ রানে ফেরেন সাদমান। সঙ্গী হারানোর পর তামিম তুলে নেন ফিফটি।

৭৫ রানে প্রথম উইকেট হারানোর পর পরের ৭৩ রান যোগ করতে বাংলাদেশ হারায় আরও ৫ উইকেট। তামিম ইকবাল বাদে প্রত্যেকেই ভুগেছেন শর্ট। নড়বড়ে শুরুর পর উইকেট বিলিয়ে এসেছেন সহজে। মুমিনুলকে ফিরিয়ে বাংলাদেশ শিবিরে আক্রমণ শুরু করেন নেইল ওয়াগনার।

বাঁহাতি পেসারের শর্ট বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন ১৫ রান করা মুমিনুল। মধ্যাহ্ন বিরতির সময় বাড়ানোয় ব্যাটিংয়ে আসেন মিথুন। কিন্তু তার আউটেই বিরতিতে যায় দুই দল। ওয়ানগানের শর্ট বল তুলে মারতে গিয়ে টপ এজ জয়ে ৩ রানে সাজঘরে ফিরেন মিথুন।

১২৭ রানে ৩ উইকেট নিয়ে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। বিরতির পর বাংলাদেশ শিবিরে সবথেকে বড় ধাক্কাটি দেন ওয়াগনার। ৭৪ রান করা তামিম ওয়াগনারের বল পুল করতে গিয়ে ডিপ স্কয়ার লেগে ক্যাচ দেন। ১১৪ বলে ১০ চারে তামিম সাজান নিজের ইনিংসটি। ক্রিজে এসে দুই চার ও এক ছক্কায় ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন আগের ম্যাচে অভিষেক টেস্ট সেঞ্চুরি পাওয়া সৌম্য। কিন্তু এবার দৃঢ়তা দেখাতে পারেননি। ম্যাট হেনরির বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন ২০ রানে।

টিকতে পারেন না অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। ওয়াগনারের শর্ট বল তুলে মারতে গিয়ে স্কয়ার লেগে ক্যাচ দেন ১৩ রানে। ১৬৮ রানে ৬ উইকেট নেই বাংলাদেশের। বড় স্কোরের স্বপ্ন সেখানেই শেষ হয় বাংলাদেশের। ২৮ রানে ৪ উইকেট নিয়ে মিডল অর্ডার ভেঙে দেন ওয়াগনার। আর শেষ ‘লেজটা’ কাটেন ট্রেন্ট বোল্ট। শেষ দিকে ৩৮ রানে ৩ উইকেট নেন বাঁহাতি পেসার।

লিটন শেষ দিকে ৪৯ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেললে বাংলাদেশের রান দুইশ অতিক্রম করে। দলে ফেরা তাইজুল ইসলাম ও মুস্তাফিজুর রহমান দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। আবু জায়েদের ব্যাটও হাসেনি। বৃষ্টিতে প্রথম দুদিন নষ্ট হওয়ায় প্রত্যেক সেশনে আধাঘন্টা করে সময় বাড়ান আম্পায়াররা। বাংলাদেশের ইনিংস চা-বিরতি পর্যন্ত টেকেনি। বাংলাদেশ অল-আউট হওয়ায় বাধ্য হয়েই চা-বিরতি ডাকেন ম্যাচ অফিসিয়ালরা।

বাংলাদেশকে অলআউট করতে ৬১ ওভার বোলিং করা লেগেছে নিউজিল্যান্ড। আজ আরও ৩৭ ওভার খেলার সুযোগ পাবে দুই দল।

এর আগে ওয়েলিঙটনের বেসিন রিভার্সে রোববার সকালে শুরু হয় বাংলাদেশ ও নিউজিল্যন্ডের মধ্যে দ্বিতীয় টেস্ট । টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ । গত দুই দিন টানা বৃষ্টির কারনে খেলা হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares