বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে গুগল ডুডলে ‘শিশু দিবস’

আজ ১৭ মার্চ। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মদিন। জাতি যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্ম দিবস উদযাপন করছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মদিবস উপলক্ষে এই দিনটিকে জাতীয় শিশু দিবস ঘোষণা করা হয়। এরপর ১৯৯৬ সাল থেকে এই দিনটিকে শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

দিনটি উপলক্ষে এবার ভিন্ন মাত্রার আয়োজন বিশেষ ডুডল প্রদর্শন করছে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই সার্চ ইঞ্জিন। দিনের প্রথম প্রহর থেকেই গুগলের হোমপেজে এটি দেখা যাচ্ছে।

এই ডুডলে দেখা যাচ্ছে- সবুজ প্রকৃতির ওপর স্থাপিত একটি নেটওয়ার্কের ওপরে শিশুরা খেলছে। এদের কেউ নেটওয়ার্ক বেয়ে ওপরে উঠছে, কেউ বসে আনন্দ করছে, আবার কেউ সেটি বেয়ে নিচে নেমে আসছে।

গুগল ডুডল, জাতীয় শিশু দিবস, বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, আর একজনকে দেখা যাচ্ছে বসে বই পড়তে। ডুডলটিতে গুগলের ইংরেজি বানানে ব্যবহৃত বর্ণগুলো দিয়ে বানানো হয়েছে শিশুদের অবয়ব।

এছাড়া বরাবরের মতো গুগলের লোগোর ইংরেজি বানানেও পরিবর্তন আনা হয়েছে। দেখা যাচ্ছে, গুগল লেখায় ব্যবহৃত বর্ণগুলো মাঝখানের দুটি বর্ণ উচ্ছসিত দুই শিশুর অবয়বে বানানো হয়েছে।

ডুডল করা দিবসটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানার জন্য এটির ওপর ক্লিক করতে হবে। এরপর এটি এ সংক্রান্ত একটি পাতায় নিয়ে যাবে। সেখানে বিদসটি সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আকারে বেশ কিছু তথ্য দেখা যাবে। এছাড়া অনেকগুলো ওয়েবসাইটের লিংকও রয়েছে, যা থেকে বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে।

১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। পাকিস্তানি শাসকদের শোষণ ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে, ভোট এবং ভাতের অধিকারের জন্য সারা জীবন লড়াই-সংগ্রাম করেছেন তিনি। পুরো জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে ধাপে ধাপে মুক্তির সংগ্রামে ব্রত করেন এই অবিসংবাদিত নেতা। তারই ফলশ্রুতিতে দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী স্বাধীতাযুদ্ধের মধ্য দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় হয়।

কিন্তু স্বাধীন দেশে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কতিপয় বিপথগামী সেনা সদস্যের হাতে প্রায় সপরিবারে নিহত হন বঙ্গবন্ধু। তার কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ চতুর্থবারের মতো সরকার পরিচালনা করছে। তার সরকার ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষিকী পালনের ঘোষণা দিয়েছে।

এবার দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলাদা আলাদা বাণী দিয়েছেন। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী সকালে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী টুঙ্গিপাড়ায় গিয়ে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। দিবসটি পালনে নানা কর্মসূচিও গ্রহণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares