সার্বভৌমত্বের ওপর আক্রমণ এলে প্রতিহত করতে হবে

সার্বভৌমত্বের ওপর আক্রমণ এলে প্রতিহত করতে হবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন- যুদ্ধ নয় শান্তি চায় বাংলাদেশ, তবে সার্বভৌম রক্ষায় কেউ হুমকি হলে বা আক্রমণ করতে এলে প্রতিহত করার প্রস্তুতি থাকতে হবে।

বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর শের-ই-বাংলা নগরে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যুদ্ধ নয় শান্তি চায় বাংলাদেশ, তবে সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সব হুমকি বা আক্রমণ প্রতিহত করার প্রস্তুতি থাকতে হবে। তিনি বলেন, ২০৩১ সালে মধ্যে উচ্চ মধ্যম এবং ২০৪১ সালে উচ্চ- আয়ের দেশে পরিণত হয়ে বাংলাদেশেকে মানব সম্পদ ও আর্থিক খাতে উদ্ভাবনী সংস্কার করতে হবে। আর আগে গত ১৭ জানুয়ারি স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় পরিদর্শনের মাধ্যমে এ কার্যক্রম শুরু করেন।

পরিদর্শন শেষে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের মতবিনিময় অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি।

এসময় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় নানা দিক-নির্দেশনা দিয়ে থাকেন। এতে সরকারের বিভিন্ন কাজে গতিশীলতা বাড়ার পাশাপাশি প্রশাসনেও স্বচ্ছতা এবং কর্মকর্তাদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্যও বাড়ে। এসময় তিনি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তগণের উদ্দেশ্যে বক্তৃতা করেন।

গত ১৭ জানুয়ারি স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় পরিদর্শনের মাধ্যমে এ কার্যক্রম শুরু করেন। এরপর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শন করেন ২৩ জানুয়ারি। পরিদর্শনের সময় বিগত সময়ে হাতে নেয়া বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইতে পারেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া জনগণের কাছে দেয়া প্রতিশ্রুতি এবং নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোকে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জনের পর ০৭ জানুয়ারি ২০১৯ শেখ হাসিনা চতুর্থবারের মত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জনের পর ১২ জানুয়ারি শেখ হাসিনা তৃতীয়বারের মত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন।

১৯৯৬ সালের ২৩ জুন তিনি প্রথম বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলেন। তাঁর নেতৃত্বধীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সে বছরের ১২ জুনের সংসদ নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছিল।২০০১ সালের সাধারণ নির্বাচনে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে তাঁর দল আওয়ামী লীগ পরাজয় বরণ করে।

শেখ হাসিনা বিরোধীদলের নেতা নির্বাচিত হন। ২০০৬ সালে বিএনপি-জামাত সরকার ক্ষমতা হস্তান্তরে জটিলতা সৃষ্টি করলে সামরিক বাহিনী সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতা গ্রহণ করে। প্রায় ২ বছর ক্ষমতায় থাকার পর ঐ সরকার ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আয়োজন করে। এই নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে। শেখ হাসিনা ২০০৯ সালের ৬ জানুয়ারি দ্বিতীয়বারের মত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares