উইন্ডিজের বিপক্ষে হেসে-খেলে জিতল বাংলাদেশ

উইন্ডিজদের হেসে খেলে হারিয়ে আয়ারল্যান্ডের অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের শুরুটা দারুণ ভাবে করেছে বাংলাদেশ দল। তিন ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার এবং সাকিব আল হাসানের ফিফটিতে জেসন হোল্ডারের বিপক্ষে ৮ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে মাশরাফি বাহিনী। টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের নৈপুণ্যে ৫ ওভার হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

এদিন অবশ্য ম্যাচ জিতলেও আক্ষেপে পুড়েছেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার এবং তামিম ইকবাল। সেঞ্চুরির আশা জাগিয়েও সেটি হাতছাড়া করেছেন তাঁরা। তামিম ৮০ এবং সৌম্যর ব্যাট থেকে আসে ৭৩ রান। ৬১ রানে অপরাজিত থাকেন সাকিব আল হাসান। উইন্ডিজদের পক্ষে শ্যানন গ্যাব্রিয়েল এবং রস্টন চেজ নেন ১টি করে উইকেট।

এর আগে ২৬২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দারুণ সূচনা পায় বাংলাদেশ। দুই ওপেনার তামিম এবং সৌম্য পাওয়ার প্লে’তে ৩৮ রান নিলেও পরবর্তীতে হাত খুলে খেলতে শুরু করেন। ইনিংসের ১২তম ওভারে দলীয় ফিফটি পার করে বাংলাদেশ।

পরবর্তী ৪৫ বলে ৫০ রান নিয়ে দলকে ১০০ রানের পুঁজি এনে দেন দুই ওপেনার। ৪৮ বলে ফিফটি তুলে নেন সৌম্য, ধীরগতিতে ব্যাট করলেও খানিক পর তামিমও পৌঁছে যান অর্ধশতকে। কিন্তু ইনিংসের ২৬তম ওভারে রস্টন চেজকে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ড্যারেন ব্রাভোর হাতে ক্যাচ তুলে দেন সৌম্য।

৬৮ বলে ৭৩ রান করে সৌম্য ফিরলেও তিন নম্বরে নামা সাকিব আল হাসানকে সঙ্গে নিয়ে দলকে ২০০’র পথে নিয়ে যেতে থাকেন তামিম ইকবাল। সেঞ্চুরির আশা জাগালেও ব্যক্তিগত ৮০ রানে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে কবজির জোরে লেগ সাইডে খেলতে গিয়ে শর্ট মিড উইকেটে জেসন হোল্ডারকে ক্যাচ দিয়ে বসেন তিনি।

ব্যক্তিগত ১ রানে রস্টন চেজের হাতে আগে একবার জীবন পেয়েছিলেন এই ওপেনার। তামিম বিদায় নিলেও মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয়ে দলকে ২০০ রানের পুঁজি এনে দেন সাকিব আল হাসান। দারুণ ব্যাটিং করে ফিফটি তুলে নেন সাকিব।

তার ফিফটির পর আর পেছনে ফিরে তাকায় নি বাংলাদেশ। নিজেদের মধ্যে ৫০ বলে ৬৮ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান এই দুজন। সাকিব ৬১ এবং মুশফিক অপরাজিত থাকেন ৩২ রানে।

এর আগে ম্যাচের শুরুতে টসে জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান নেন উইন্ডিজ দলপতি জেসন হোল্ডার। ব্যাটিংয়ে নেমে উইন্ডিজকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার শেই হোপ ও সুনীল অ্যামব্রিস।

দুজনে যোগ করেছেন ৮৯ রান। ৫০ বলে ৩৮ রান করে সুনীল অ্যামব্রিস সাজঘরে ফিরে যাওয়ার খানিক পর ব্রাভো বিদায় নেন ১ রানে। দুই উইকেট হারালেও দারুন ব্যাটিং করেন শাই হোপ এবং রস্টন চেজ।

তৃতীয় উইকেটে ১১৫ রান যোগ করেন তাঁরা। জুটি গড়ার পথে মাত্র ১২৬ বলে সেঞ্চুরি তুলে নেন হোপ। এই পর্যন্ত ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ অনেকটাই উইন্ডিজের হাতে ছিল। ৪০ ওভারে ২ উইকেটে ১৯৭ রান করা ওয়েস্ট ইন্ডিজ শেষ ১০ ওভারে ৭ উইকেট মাত্র ৬৪ রান যোগ করতে সক্ষম হয়।

১৩২ বলে ১০৯ রানের ইনিংস খেলেন শাই হোপ। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৬১ রানের পুঁজি পায় ক্যারিবিয়ানরা। বাংলাদেশের পক্ষে ৪৯ রানে ৩ উইকেট নেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশঃ ২৬২/২ (৪৫ ওভার)

(মুশফিক ৩২*, সাকিব ৬১*; চেজ ১/৫১)

উইন্ডিজঃ ২৬১/৯ (৫০ ওভার)

(হোপ ১০৯, চেজ ৫১; মাশরাফি ৩/৪৯)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares