রাজশিশুকে নিয়ে ‘বর্ণবাদী’ টুইট, চাকরি হারালেন বিবিসি’র উপস্থাপক

ব্রিটিশ রাজপরিবারের নতুন সদস্য, হ্যারি-মেগান দম্পতির নবজাতক ‘আর্চি’কে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ টুইট করেছিলেন বিবিসি রেডিও লাইভের জনপ্রিয় উপস্থাপক ড্যানি বেকার। ভুল বুঝতে পেরে কিছুক্ষণ পর তা সরিয়েও ফেলেন। কিন্তু ততক্ষণে টুইটারে বয়ে গেলে সমালোচনার ঝড়। টুইটটিকে ‘বর্ণবাদী’ আখ্যা দিয়ে ড্যানি বেকারকে রীতিমতো ধুয়ে দিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। ক্ষমা চেয়েও তাই পার পাননি ড্যানি, হারিয়েছেন চাকরি।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) এক বিবৃতিতে বিবিসি রেডিও বলছে, ড্যানি যে টুইট করেছেন, তা তাদের রেডিও স্টেশনের মূল্যবোধের সঙ্গে মোটেও সঙ্গতিপূর্ণ নয়। ওই টুইটের বিষয়বস্তু নির্বাচন ড্যানির জন্য অত্যন্ত ভুল একটি সিদ্ধান্ত ছিল।

গত ৬ মে ভোরে ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারি ও ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেলের ঘর আলোকিত করে জন্ম নেয় রাজপরিবারের নতুন সদস্য। তার নাম রাখা হয় আর্চি হ্যারিসন। তবে জন্মের পরপরই জ্বর বাঁধলে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয় আর্চিকে। হাসপাতাল ছাড়ার দিন সাংবাদিকদের সামসেন সন্তানের নাম ঘোষণা করেন হ্যারি-মেগান দম্পতি।
বিজ্ঞাপন

আর্চির হাসপাতাল ছাড়ার বিষয়টি নিয়েই ‘আপত্তিকর’ টুইট করেছিলেন ড্যানি বেকার। একটি ছোট শিম্পাঞ্জিকে দুই পাশ থেকে হাত ধরে রেখেছেন এক দম্পতি— এমন একটি ছবি টুইট করেন তিনি। আর এর ক্যাপশন দেন— ‘হাসপাতাল ছাড়ছে রাজপরিবারের শিশু’।

সমালোচকরা বলছেন, শিম্পাঞ্জির সঙ্গে কোনো মানবশিশুর তুলনা হতে পারে না। তাছাড়া, আর্চির জন্মদাত্রী মেগান মার্কেলের মা ডোরিয়া র‌্যাগল্যান্ড মূলত কৃষ্ণাঙ্গ বা আফ্রিকান-আমেরিকান। শিম্পাঞ্জির ছবির মাধ্যমে ড্যানি মূলত সেটিই ইঙ্গিত করেছেন বলে একে স্পষ্ট বর্ণবাদ আখ্যা দেন তারা।

পরিস্থিতি বেগতিক দেখে ছবিসহ টুইটটি ডিলিট করেন ড্যানি। ক্ষমাও চান। ডেইলি মেইলকে তিনি বলেন, নিজের নির্বুদ্ধিতায় তিনি নিজেই হতবাক হয়ে পড়েছেন। ছবিটির জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থনা করছি। ভুল বুঝতে পারামাত্র আমি এটি সরিয়ে নিয়েছি।

এতে অবশ্য শেষ রক্ষা হয়নি। অনেকেই মন্তব্য করেছিলেন, ড্যানির নিজেরই উচিত তার কাজ থেকে অব্যাহতি নেওয়া। তবে ড্যানি সে সুযোগ পাননি, তাকে চাকরিচ্যুত করেছে বিবিসি রেডিও। এ সংক্রান্ত এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ড্যানি একজন চমৎকার উপস্থাপক। কিন্তু এখন থেকে সে আর আমাদের সঙ্গে কাজ করবে না। গত কয়েক বছর ধরে শনিবারের সকালটি সে যেভাবে মাতিয়ে রেখেছিল, তার জন্য ড্যানিকে ধন্যবাদ।

রাজপরিবার নিয়ে মজা করার মজাটা হারে হারে টের পাচ্ছেন ৬১ বছর বয়সি এ জনপ্রিয় উপস্থাপক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares