আপনার ছবি দেখে কতো যে মাইর খেয়েছি: মাশরাফী

ঢাকাই সিনেমার সুদর্শন নায়ক আমিন খান। তবে এখন আর তাকে আগের মতো সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা যায় না। মাঝে দীর্ঘ সময় চলচ্চিত্র থেকে বিরতিতেও ছিলেন তিনি।

এক সময় প্রচুর দর্শক আমিন খানের সিনেমা দেখতেন। সে তালিকায় ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আমিন খানের সিনেমা দেখে তার কৈশোর কেটেছে।

জনপ্রিয় এই চিত্রনায়কের অভিনয় ক্যারিয়ার যখন তুঙ্গে, জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা তখন দুরন্ত কিশোর। তখন নড়াইল সদর চষে বেড়াতেন মাশরাফী। মাঠে মাঠে ক্রিকেটে মেতে থাকতেন, বন্ধুদের সঙ্গে হইহুল্লোড় করে বেড়াতেন, সিনেমা হলে গিয়ে বাংলা ছবি দেখতেন। সোমবার রাতে প্রথমবার আমিন খানের সঙ্গে সাক্ষাতে তাই ভীষণ স্মৃতিকাতর মিস্টার ক্যাপ্টেন!

সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাশরাফীর মিরপুরের অফিসে গিয়েছিলেন আমিন খান। সেখানে দুই অঙ্গনের এই দুই তারকার প্রথম দেখা হয়। আমিন খানকে পেয়ে নিজে এগিয়ে এসে কথা বলেন মাশরাফী। আমিন খান ক্যাপ্টেন মাশরাফীর ব্যবহারে মুগ্ধ হন। কুশল বিনিময় করতে গিয়ে আড্ডা চলে রাত ১২ টা পর্যন্ত।

আমিন খানকে পেয়ে মাশরাফী ফিরে যান তার দুরন্ত কৈশোরে। কী আলাপ হলো আমিন খান ও মাশরাফীর?

দেশের একটি জনপ্রিয় অনলাইনকে জানিয়েছেন ‘হৃদয়ের বন্ধন’ খ্যাত এই নায়ক। আমিন খান বলেন, মাশরাফী এখন সংসদ সদস্য। সোমবার রাতে তার অফিসে প্রচুর লোক ছিল। যখন কথা বলছিলাম মনে হচ্ছিলো আমাদের চারপাশে কেউ নেই। আমাদের প্রথম দেখা হলেও আলাপ করতে গিয়ে এমন অবস্থা হয়েছে, মনে হয়েছে ছোটবেলা থেকে আমরা দুজন দুজনার পরিচিত। সে যে কতো আলাপ আমাদের, বলে শেষ করা যাবে না।

আমিন খান বলেন, মাশরাফী বলছিলেন, আমার সিনেমা দেখতেন নড়াইলের সিনেমা হলে গিয়ে। তখন ৭ টাকা দিয়ে টিকেট কেটে হলে গিয়ে আমার ছবি দেখতেন। সুপারি, ডাব, ডিম এসব বিক্রি করে আমার ছবি হলে এলেই দেখতে যেতেন। অনেকসময় এগুলো চুরি করে বিক্রি করতে গিয়ে ধরাও পড়েছেন। এতে করে কতবার মার খেয়েছেন মাশরাফী তার ঠিক নেই। তার বন্ধুরাও এসব দুরন্তপনায় সঙ্গে থাকতো।

মাশরাফীর সঙ্গে সবচেয়ে বেশি সঙ্গ দিত তার এক মামাতো ভাই। গতকাল রাতে তাকেও ফোন করে আমার সঙ্গে আলাপ করিয়েছেন মাশরাফী। সে নাকি আমার আরও বড় ফ্যান! তার মতো একজন আন্তর্জাতিক তারকার কাছ থেকে এসব শুনে আমার ভেতরটা গর্বে ভরে উঠেছিল। যখন আলাপ করছিলাম, মজা করে মাশরাফী বার বার বলছিলেন, আমিন ভাই টাকা ফেরত দেন। টাকা দিয়ে হলে গিয়ে আপনার কত ছবি দেখেছি তার কোনো হিসেব নেই! কৈশোরে আপনার ছবি দেখার জন্য অনেক টাকা খরচ করেছি, সবগুলো টাকা ফেরত দেন। বার বার এটা বলছিলো আর মাশরাফী হাসছিল। এ জিনিসগুলো আমার এত ভালো লেগেছে যে, বলে বোঝাতে পারবো না।

কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে আমিন খান বলেন, চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করার ফলে কিছু মানুষ পছন্দ করে, ভালোবাসে। মানুষের এই ভালোবাসাকে চাপ মনে না করে সবার সাথে হাসিমুখে কথা বলা কিংবা মেশার চেষ্টা করি। কখনো নিজেকে তারকা মনে করি না। সাধারণ মানুষের মত জীবনযাপন আর পথের মানুষের কাছাকাছি থাকার দিক দিয়ে নিজেকে নিয়ে গর্ব করতাম।

কিন্তু আমাদের সবার প্রিয় মাশরাফী ভাইয়ের সাথে আড্ডা দিলে নিজের কাজকে খুব সাধারণ মনে হয়। ভালো লাগে যখন শুনি এই মানুষটির দুরন্ত কৈশোরে আমার ছবির ভালো জায়গা ছিল। সব মিলিয়ে সত্যি অসাধারণ একজন মানুষ তিনি।

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে সম্প্রতি দেশে ফিরেছেন মাশরাফী। ত্রিদেশীয় সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ছিলো ওয়ালটন। আর ওয়ালটনের বর্তমান ব্র্যান্ড ম্যানেজিংয়ের প্রধান চিত্রনায়ক আমিন খান। সিরিজ জয় পরবর্তী শুভেচ্ছা জানাতেই ওয়ালটনের প্রতিনিধি হয়ে মাশরাফীর অফিসে গিয়েছিলেন তিনি, আর ফিরে এলেন মধুর স্মৃতি নিয়ে! আমিন খান বলছেন, এগুলোই একজন অভিনেতার জীবনের সম্বল! সূত্র-চ্যানেল আই অনলাইন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares