নুসরাত হত্যায় ১৬ জন জড়িত : পিবিআই

মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজ, ফেনীর আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল আমিন ও কাউন্সিলর মাকসুদসহ ১৬ জনের সম্পৃক্ততার প্রমাণ দেখিয়ে চার্জশিট চূড়ান্ত করা হয়েছে। আগামীকাল বুধবার (২৯ মে) চার্জশিট আদালতে জমা দেবে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

মঙ্গলবার (২৮ মে) পিবিআইর সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ কথা জানান পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার।

তিনি জানান, নুসরাত হত্যায় মোট ১৬ জন জড়িত বলে তদন্তের মাধ্যমে প্রমাণ মিলেছে। হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন ১২ জন।

এছাড়া পিবিআই প্রধান জানান, এই মামলার চার্জশিট চূড়ান্ত হয়েছে। আগামীকাল বুধবার চার্জশিট আদালতে জমা দেওয়া হবে।

এর আগে রবিবার দুপুরে পিবিআই চট্টগ্রাম বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. ইকবাল জানায়, নুসরাত হত্যা মামলার তদন্ত কার্যক্রম শেষ পর্যায়ে। ৩০ মের মধ্যে চার্জশিট প্রদান করা হবে।

মো. ইকবাল আরও বলেন, নুসরাত হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার করা হয়েছে। এ মামলা এখন পর্যন্ত ২১ জনকে বিভিন্ন সময়ে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের মধ্যে ১২ জন হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। পিবিআই নুসরাত হত্যায় ব্যবহৃত বেশ কিছু আলামতও সংগ্রহ করেছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পিবিআই পরিদর্শক মো. শাহ আলম জানান, নুসরাত হত্যা মামলার চার্জশিট প্রদানের জন্য পিবিআই নিরলসভাবে কাজ করছে। ঠিক কবে নাগাদ চার্জশিট প্রদান করা হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ মাসের মধ্যেই এ মামলার চার্জশিট দেয়া হবে।

আলোচিত এ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- মাদ্রাসার অধ্যক্ষ এসএম সিরাজ উদ দৌলা, কাউন্সিলর ও পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ আলম, শিক্ষক আবছার উদ্দিন, সহপাঠী আরিফুল ইসলাম, নূর হোসেন, কেফায়াত উল্লাহ জনি, মোহাম্মদ আলা উদ্দিন, শাহিদুল ইসলাম, অধ্যক্ষের ভাগনি উম্মে সুলতানা পপি, জাবেদ হোসেন, জোবায়ের আহমেদ, নুর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, মো. শামীম, কামরুন নাহার মনি, আবদুর রহিম ওরফে শরিফ, ইফতেখার হোসেন রানা, এমরান হোসেন মামুন, মহিউদ্দিন শাকিল, হাফেজ আবদুল কাদের ও আওয়ামী লীগ সভাপতি ও ওই মাদ্রাসার সহসভাপতি রুহুল আমিন।

এর মধ্যে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা, নুর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, উম্মে সুলতানা পপি, কামরুন নাহার মনি, জাবেদ হোসেন, আবদুর রহিম ওরফে শরীফ, হাফেজ আবদুল কাদের ও জোবায়ের আহমেদ, এমরান হোসেন মামুন, ইফতেখার হোসেন রানা ও মহিউদ্দিন শাকিল আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের দায়ে ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে আটক করে পুলিশ।

পরে ৬ এপ্রিল ওই মাদ্রাসা কেন্দ্রের সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের সহযোগীরা তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। টানা ৫ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মারা যায় নুসরাত জাহান রাফি।

এ ঘটনা তার বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Shares